sex story in bangla স্যারের সাথে গোপনীয়তা ১ by piyali Das

sex story in bangla. স্বর্ণালী রায়, একজন philosophy এর স্টুডেন্ট। খুব ভালো পড়াশুনায়, H.S এ দারুন রেজাল্ট করেছে। এরপর সে ঠিক করেছে philosophy Hons নিয়ে পড়াশুনা করবে। স্বর্ণালী পরিবারের সব থেকে আদরের ছোট মেয়ে। তার বাবা মা দাদা কোনোদিন তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে গিয়ে কাজ করেনি। যাইহোক, স্বর্ণালী ভর্তি হলো philosophy Hons নিয়ে ভগবতী দেবী কলেজে।

স্বর্ণালী কে দেখতে খুব একটা খারাপ নয়, গায়ের রং শ্যামবর্ণ। কিন্তু মেয়েটা বড্ড শান্ত ও চুপ চাপ স্বভাবের। ছোট বেলা থেকেই পড়াশুনা নিয়েই তার জীবন কাটে। অন্য কিছু নিয়ে কোনোদিন ভাবেনি স্বর্ণালী। চোখে একটা মোটা পাওয়ারের চশমা। চুল আছে মাথায় খুব , বেশ লম্বা চুল। স্বর্ণালী সব সময় কুর্তি আর লেঙ্গিনস পড়তে ভালোবাসে ।

sex story in bangla

স্বর্ণালী প্রথম দিন কলেজে যায় , গিয়ে সেইরকম কোনো বন্ধু না পেলেও সে চুপ চাপ একা বসে থাকে বেঞ্চ এ। ইতিমধ্যে, তার প্রথম ক্লাস শুরু হবার ঘণ্টা পড়ে যায়। প্রথম ক্লাস যার ছিল তার নাম ছিল মিঠুন চক্রবর্তী , একজন প্রফেসর। তিনি MPhil করেছেন। বর্তমানে তিনি বিবাহিত, কিন্তু তার বৈবাহিক জীবনে তিনি সুখী নন। তার কারণ হলো তিনি এই বিয়ে টা নিজের পছন্দ তে করেননি, তার বাড়ির লোকের চাপে তিনি করেছেন।

কিন্তু মিঠুন খুব কর্তব্য পরায়ণ মানুষ । তিনি কোনোদিনও তার স্ত্রী র দুঃখের কারণ হয়ে ওঠেননি। তাদের মধ্যে কোনো বাচ্চার জন্ম এখনো হয়নি। পড়াশুনা নিয়েই তার সব সময় সাধনা।
যাইহোক, এখন প্রথম ক্লাস এ ঢুকতেই সে স্বর্ণালী কে দেখতে পাই। ফার্স্ট বেঞ্চের এক সাইডে বসে থাকা স্বর্ণালী। তারপর মিঠুন নিজের চেয়ার এ বসে সবার সাথে পরিচয় করে নেয়। sex story in bangla

মিঠুন: hii to all of my students, আশা করি সবাই সুস্থ এবং ভালো আছো। আমি তোমাদের philosophy এর teacher । আরো mam sir রা আছেন তারাও ক্লাস করানোর সময় পরিচয় করিয়ে নেবেন। যাইহোক তোমাদের ফার্স্ট ক্লাস ষ্টার্ট করছি। এই বলে মিঠুন রোল কলিং করতে শুরু করলো। নাম ডাকার মাঝে মাঝে সে আড়চোখে স্বর্ণালী কে দেখছিল। এখন কেনো দেখছিল সেটাতো বলা মুস্কিল! যাইহোক, মিঠুন পড়ানো স্টার্ট করে এবং ৪০ মিন্টস পর তার ক্লাস শেষ হলে সে বেরিয়ে চলে আসে।

কিছুদিন ক্লাস করার পর আস্তে আস্তে মিঠুন বুঝতে পারে স্বর্ণালী খুব ব্রিলিয়ান্ট স্টুডেন্ট। ক্লাসের প্রতেকটা question এর জবাব দেয়। মিঠুন কেন ক্লাসের প্রতেকটা sir mam তাকে পছন্দ করে । এইভাবে 1st semester এসে যায়, এক্সাম দেয় কিন্তু স্বর্ণালী র রেজাল্ট সেই বারে ভালো হলোনা । মিঠুন তার রেজাল্ট দেখে খুব disapointed হলো। মিঠুন স্বর্ণালী কে ডেকে পাঠালো। sex story in bangla

মিঠুন: স্বর্ণালী তোমার রেজাল্ট দেখেছো?
স্বর্ণালী: হ্যাঁ স্যার। আমি সত্যি ভাবতে পারিনি এতো খারাপ রেজাল্ট হবে আমার।
মিঠুন: dept এর প্রতেকটা টিচার তোমার রেজাল্ট দেখে অবাক হয়ে গেছে । কিসের জন্য হলো বলো আমাকে? যদি আমি কোনো হেল্প করতে তোমায় পারি।

স্বর্ণালী: sir, মানে আসলে …. মানে….. ওই…..
মিঠুন: প্লিজ খুলে বলো আমাকে যদি আমি কোনো সাহায্য করতে পারি।
স্বর্ণালী: আসলে স্যার আমার একটা টিউশন সাপোর্ট লাগতো। আমি একা একা পারছিনা সবকিছু।
মিঠুন: এই প্রবলেম টা আগে বললে তোমার রেজাল্ট টা হতনা স্বর্ণালী। আচ্ছা ঠিক আছে। তুমি আমার বাড়িতে Saturday and Sunday করে আস্তে পারবে? sex story in bangla

স্বর্ণালী: হ্যাঁ স্যার । আমি পারবো।
মিঠুন: তাহলে আছো বরং।
স্বর্ণালী: ওক স্যার , thanku।
এইবলে স্বর্ণালী চলে গেলো নিজের ক্লাসরুম এ। স্বর্ণালী খুবই দুঃখিত তার রেজাল্ট নিয়ে । এইরকম রেজাল্ট সে আশা করেনি কোনোদিন। কলেজ শেষে সে বাড়িতে পৌঁছে কিছুই ঠিক মতন খাওয়া দাওয়া করলনা । বাড়ির লোক বোঝানো সত্ত্বেও যেন স্বর্ণালী নিজের ঘরে গিয়ে দরজা বন্ধ করে জানলার পাশে বসে ভাবতে থাকলো।

কিছু দিন পরের কথা, সেদিন ছিল Saturday। মিঠুন স্যার এর বাড়িতে পড়তে যাওয়ার প্রথম দিন। বাড়িটা খুব একটা ধুর না হলেও বাড়িতে দুখতেই স্বর্ণালী অবাক হয়ে গেলো কত বড় বাড়ি। বিশাল বড়লোক। বাড়িতে স্যার ছিলনা কিন্তু স্যার এর বউ ছিল। বেল বাজাতেই দরজা টা স্যার এর বউ খুলে দিলো। sex story in bangla

স্যার এর বউ: স্বর্ণালী? right?
স্বর্ণালী: হ্যা mam।
স্যার এর বউ: হ্যাঁ। ঠিক ধরেছি। তোমার স্যার আমাকে তোমার কথা সব বলেছিল। তুমি আজকে আসবে সেটাও বলেছে । তুমি একটু ঢুকে বোসো। স্যার এখুনি চলে আসবে।
স্বর্ণালী: হ্যাঁ মাম । thanku.
এই বলে স্বর্ণালী বসে ওয়েট করতে থাকলো। কিছুক্ষণ পর স্যার ঢুকলো।

মিঠুন: স্বর্ণালী। sorry অনেকটা লেট হয়ে গেলো। তুমি বসো আমি ফ্রেশ হয়ে আসছি।
স্বর্ণালী: হ্যা স্যার.
এইবলে মিঠুন শান করে ফ্রেশ হয়ে এসে স্বর্ণালী কে পড়াতে বসলো। স্বর্ণালী একটু পড়া বোঝে আর আড়চোখে স্যার কে দেখে আর মনে মনে ভাবে স্যার কত্ত ভালো মানুষ যে, নিজের সময় নষ্ট করে পড়াচ্ছে। এমন মানুষ সত্যি বিরল। sex story in bangla

এইভাবে আর মুচকি মুচকি হাসে। এইভাবে কিছুদিন চলছিল। হঠাৎ একদিন বৃষ্টি পড়তে শুরু করে । দিনটা ছিল রবিবার।সেদিন বাড়িতে মিঠুনের বউ ছিলনা। স্বর্ণালীকে ঘরে একা পড়াছিল। হঠাৎ পড়াতে পড়াতে একটা কল আসে। মিঠুন phn টা recived করার জন্য একটু সাইডে যায় কিন্তু সব কথাই প্রায় শোনা যাচ্ছিল।
মিঠুনের মা phn koreche মিঠুনকে ।

মিঠুন: হ্যাঁ মা বলো।
মা: কী রে বাবু কেমন আছিস? phn করিসনা।মা কে ভুলে গেছিস?
মিঠুন: না মা। একটু ব্যাস্ত হয়ে পড়েছি।
মা: বৌমা কে phn করেছিলাম শুনলাম বাড়িতে নেই।
মিঠুন: হ্যাঁ মা ও একটু বাপের বাড়ি গেছে। sex story in bangla

মা: আচ্ছা। বাবু সন আমার কথা ।
মিঠুন: প্লীজ মা, আমি জানি তুমি কি বলবে।
মা: একটা ছোট্ট বাচ্চা হলে তোর ঘড় আলো হয়ে যাবে । আমাকে কি নাতি – নাথনীর মুখ দেখবিনা ?
মিঠুন: প্লীজ মা। আমি খুব ভালো আছি আমার প্রফেশন নিয়ে আর তোমার বৌমার কোনো অভিযোগ নেই আমার বিরুদ্ধে।

মা: ওরে পাগল ! বৌমা কি আর মুখ ফুটে বলবে ? হ্যা?
মিঠুন : ঠিক আছে আমি রাখলাম এখন।
এইবলে মিঠুন phn টাকে রেখে দিল। পাস দিয়ে স্বর্ণালী সব কথা শুনলো। স্বর্ণালীর মনে অনেক প্রশ্ন ঘুরছিল। ভাবলো স্যার কি এই বিয়ে তে খুশি নয়? যাইহোক, স্যার এর পার্সোনাল লাইফ এ ঢোকার অধিকার নেই আমার। sex story in bangla

আমি বেকার এইসব চিন্তা করছি এই বলে স্বর্ণালী ভাবা বন্ধ করে দিলো।
মিঠুন: স্বর্ণালী হয়েছে তোমার? যেটা তোমায় করতে দিলাম?
স্বর্ণালী: না স্যার এই করছি।
মিঠুন: দেখো স্বর্ণালী তোমার উপর আমার বিশ্বাস আছে তুমি ভালো রেজাল্ট করতে পারবে ।

এই বলে স্বর্ণালীর হাত টা মিঠুন ধরলো । হঠাৎ স্বর্ণালীর শরীরের মধ্যে কিরকম একটা শিহরণ উঠল। কিন্তু এই শিহরণ কিসের? সেটা স্বর্ণালী বুঝতে পারলনা। এর পর 2nd semester এর এক্সাম চলে আসে। এ বারের রেজাল্ট এ স্বর্ণালী টপ করলো Dept এ। কিন্তু মুস্কিল হলো একটা। dept এর সবাই স্বর্ণালী কে নিয়ে খারাপ খারাপ আলোচনা করতে শুরু করলো। sex story in bangla

ক্লাস পাস দিয়ে যখন মিঠুন যায় তখন ২ টো মেয়ের মধ্যে আলোচনা করতে শোনে। জানিস? স্বর্ণালী এবার ক্লাস এ টপ করেছে? আরেকটা মেয়ে বলে করবেই না কেনো? স্যার এর সাথে যে বেডরুম এ শুয়েছে।এই বলে হাসাহাসি করতে থাকে। মিঠুন এই কথাটা শুনে স্টাফ রুম এ চলে যায় । গিয়ে স্বর্ণালীর কথা ভাবতে শুরু করে।
এরপর বাড়িতে যায় গিয়ে স্বর্ণালী কে মিঠুন phn করে।

মিঠুন: hello স্বর্ণালী বলছ?
স্বর্ণালী: হ্যা স্যার বলুন. আমার রেজাল্ট ডেকেছেন?
মিঠুন: হ্যাঁ দেখেছি । well done । আরো ভালো করবে। আচ্ছা স্বর্ণালী আমার বাড়িতে একবার একটু এখন আস্তে পারবে ?
স্বর্ণালী: হ্যা স্যার । দাড়ান আসছি। sex story in bangla

এই বলে স্বর্ণালী মিঠুনের বাড়ি গেলো। স্বর্ণালী বেল বাজতেই দরজা খুলে দিলো মিঠুন।
মিঠুন: হ্যাঁ স্বর্ণালী এসো ভিতরে। আমার বেডরুম এ যাও। আমি আসছি ।
এই বলে বেডরুম এ গিয়ে বসে পড়ে । প্রায় অনেকক্ষণ পর বৃষ্টি শুরু হয় হালকা হালকা। স্যার আসছেনা কেনো? সেই নিয়ে চিন্তায় পড়ে গেলো স্বর্ণালী। ৩০ মিনিট পর স্যার নিজে এলো।

মিঠুন: হ্যা । sorry একটু দেরি হয়ে গেলো । কটা কল এসেছিল আমার। আচ্ছা এতো ভালো রেজাল্ট করেছো কি চাও বলো?
স্বর্ণালী: ভেবে দেখব স্যার।
মিঠুন: আচ্ছা স্বর্ণালী তোমার কলেজের বন্ধুদের সাথে দেখা হয়েছিল? sex story in bangla

স্বর্ণালী: না স্যার কেনো বলুনতো?
মিঠুন: আমার কিছু কথা কানে এসেছে সেই জন্যই বললাম। একটু সাবধানে থেকো।
স্বর্ণালী: কিরকম কথা স্যার?
মিঠুন: কিরকম কথা এখন তোমায় কিভাবে বোঝাই বলোতো? কথা গুলো বলবার মতন নয়।

স্বর্ণালী: টাও বলুন না স্যার কিরকম কথা? আমি কাউকে কিছু বলবনা।
মিঠুন: কথাটা হল – তুমি নাকি আমার সাথে এক রুম এ…. ছাড়ো বাদ দাও । তুমি সাবধানে থেকো ব্যাস এইটুকুই।
এইবলে মিঠুন উঠে চলে যাচ্ছিল আর তখনই স্বর্ণালী মিঠুন এর হাত টা ধরে বলে…. sex story in bangla

স্বর্ণালী: স্যার আমার গিফ্ট টা কি চাও জানবেনা?
মিঠুন: (আবার বেড এ বসে পড়ল) হ্যা বলো স্বর্ণালি কি গিফট্ চাও?
স্বর্ণালী: আমার কিছু প্রশ্ন আছে জিজ্ঞাসা করতে পারি? যদিও খুব পার্সোনাল। যদি প্রবলেম থাকে বলবেননা
মিঠুন: হ্যা বলনা শুনি?

স্বর্ণালী: ম্যামের সাথে কি আপনার সম্পর্ক টা ভালো নেই?
মিঠুন: হঠাৎ এইরকম প্রশ্ন? কেনো?
স্বর্ণালী: কিছু মনে না করলে আমি সেদিন phn এ আপনার মার সাথে বলা কথা গুলো শুনে নিয়েছিলাম

মিঠুন: স্বর্ণালী তুমি যেমন ভাবছ তেমন নয় । তোমার ম্যামের সাথে আমার সর্ম্পক ভালো আছে কি নেই তার থেকেও বড় কথা হলো আমার বিয়েটা আমার ইচ্ছার উপর হয়নি । তখন আমি বিয়ের জন্য তৈরি ছিলাম না । নিজের প্রফেশন টাকে খুব ফোকাস করে ছিলাম। তাই সেই ভাবে আখন পর্যন্ত কোনো সম্পর্ক আমাদের মধ্যে তৈরি হয়নি। কিন্তু হ্যা আমি তাকে কোনো কষ্ট দেইনি আজ পর্যন্ত। কিন্তু তুমি এইগুলো জেনে কি করবে? sex story in bangla

স্বর্ণালী: কারণ আমি আপনাকে পছন্দ করে ফেলেছি স্যার । জানিনা হয়তো এইটা আমার করা উচিত নয়
মিঠুন: স্বর্ণালী……. তোমার মাথা ঠিক আছে? আমি বিবাহিত। কি সব বলছ তুমি?
স্বর্ণালী: স্যার i m sorry…. কিন্তু আমি সত্যি বলছি।

মিঠুন: এবার আমি খুব রেগে যাচ্ছি। তোমাকে আমি ভেবে তোমার সাহায্য করতে এসেছিলাম। আর তুমি ছিঃ……….. বেরিয়ে যাও এখুনি আমার ঘড় থেকে আর কোনোদিন আসবেনা ।
স্বর্ণালী: না স্যার প্লীজ …. আমাকে এইভাবে তাড়িয়ে দেবেননা । আমার ভুল হয়ে গেছে আমি কোনোদিন বলবনা কিন্তু তাড়িয়ে দেবেননা। প্লীজ স্যার।

মিঠুন: বেরিয়ে যাও এখুনি।
এরপর ভয়ে বেরিয়ে চলে গেলো স্বর্ণালী….. ঘরে গিয়ে স্বর্ণালী ভাবতে থাকলো কি ভুল করলাম আমি? স্যার কে কেনো বললাম এই কথাটা । যে আমার এতো সাহায্য করলো টাকে আমি যা খুশি টাই বললাম? এই ভেবে ভেবে স্বর্ণালী কাদ্দে থাকে। sex story in bangla

দিনের পর দিন চলে যায় স্বর্ণালী আর কলেজ এ আসে না । মিঠুন ক্লাস করাতে আসে স্বর্ণালী কে না দেখতে পেয়ে চিন্তায় পরে যায়। একদিন সন্ধ্যেবেলা খুব বৃষ্টি পড়ছে মিঠুন ঠিক করে স্বর্ণালী এর বাড়ির লোককে phn করবে। এই বলে সে phn করে
মিঠুন: হ্যা আমি মিঠুন চক্রবর্তী বলছি । স্বর্ণালীর কলেজের প্রফেসর.

স্বর্ণালীর মা: হ্যাঁ বলুন স্যার । নমস্কার
মিঠুন: বলছি? স্বর্ণালী কেনো কলেজ এ আসেনা বলতে পারবেন?
স্বর্ণালীর মা: জানিনা স্যার। আমার মেয়ে গত কয়েকদিন ধরে কোনো কিছু খাচ্ছেনা। কলেজে যাওয়া টো ধুরের কথা।মিঠুন: সেকি? আচ্ছা ওকে পাঠিয়ে দেবেন একবার আজকে আমার বাড়িতে সন্ধ্যেবেলা ৭ টা নাগাদ ।
ওকে বলবেন আমি পড়তে ডেকেছি। sex story in bangla

স্বর্ণালীর মা: আচ্ছা স্যার। ওক আমি পাঠিয়ে দেবো।
সেদিন ও মিঠুনের বাড়িতে মিঠুনের বউ নেই। মিঠুন চিন্তা করে যে মেয়েটাকে এইভাবে বলাটা উচিত হয়নি। ওর বয়স টা তো কম। এই বয়সে এইরকম হয় ন্যাচারাল। কিন্তু, স্বর্ণালী কি আজকে আসবে? আমার উপর রাগ করে আছে নাকি?

এইসব ভাবতে ভাবতে মিঠুন ঘুমিয়ে পড়ে। ঘুম ভাঙ্গে কলিং বেলের আওয়াজ শুনে। তখন বাজে ৬:৫০. মিঠুন গিয়ে দরজা খুলতেই দেখে স্বর্ণালী.
মিঠুন: হ্যাঁ। আসো আসো। বসো
মিঠুন দেখে স্বর্ণালী কেঁদে কেঁদে চোখের অবস্থা খুব খারাপ করে ফেলেছে।

মিঠুন: আচ্ছা । তুমি কলেজে আশা বন্ধ কেন করে দিয়েছো?
স্বর্ণালী: আমি আর কলেজ পড়বো না স্যার।
মিঠুন: কেনো? কি হয়েছে?
স্বর্ণালী: না স্যার। আমার আর পড়তে ইচ্ছা করছেনা। sex story in bangla

মিঠুন: আচ্ছা স্বর্ণালী তুমি এত বড় হয়ে বাচ্চাদের মতন জিদ করছ। আচ্ছা i am extremely sorry। কান ধরলাম প্লিজ আর রাগ করোনা। আমি আছি তোমার পাশে। এবার একটু হাসো দেখি?
এইবলে স্বর্ণালী একটু হাসলো। সেই দেখে মিঠুনের খুব ভালো লাগলো। গত কয়েবছরে এইরকম ভালো লাগা কোনোদিন হয়নি মিঠুনের।

মিঠুন: আচ্ছা বসো কফি করে আনছি আমি।
এইবলে কফি করে আনে মিঠুন ২জনের জন্য।
কফি টা রাখতেই টেবিলে খুব জোরে বিদ্যুৎ চমকায় আর স্বর্ণালী মিঠুনকে জড়িয়ে ধরে ভয় এ। মিঠুন ও নিজেকে কন্ট্রোল করতে না পেরে জড়িয়ে ধরে স্বর্ণালী কে। sex story in bangla

উফফ কি অনুভূতি। যা কোনোদিনও আগে নিজের বউয়ের সাথেও হয়নি।আস্তে আস্তে স্বর্ণালীর ঠোঁটের কাছে মিঠুনের ঠোঁট চলে আসে এবং তাঁরা একে অপরকে কিস খাই। হুট করে স্বর্ণালী লজ্জা পেয়ে উঠে চলে যাবে তখনই মিঠুন পিছন দিয়ে স্বর্ণালীর হাত টা ধরে।
মিঠুন: চলে যাচ্ছ? স্বর্ণালী?

স্বর্ণালী: স্যার। sorry …. বুঝতে পারিনি । ভুল করে……
মিঠুন: ভুল? এই ভুল টাকে না হয় সত্যি ভেবে এস আমার কাছে একেবারের জন্য। তুমি জানো গত ৬ বছরে আমার বউয়ের সাথে যে ফিলিংস টা আসেনি সেটা আজ এসেছে কেনো স্বর্ণালী কেনো? বলতে পারবে?
স্বর্ণালী: জানিনা স্যার কিন্তু আমার ভীষন লজ্জা করছে ছেড়ে দিন আমাকে।
মিঠুন হঠাৎ উঠে পিছন থেকে স্বর্ণালী কে জড়িয়ে ধরলো আর কানে কানে বলল…. sex story in bangla

মিঠুন: প্লীজ স্বর্ণালী, তখন চাইনি আজকে চাইছি আমাকে একটা সুযোগ দাও প্লিজ…….. পারছিনা আমি বিশ্বাস করো।
এই বলতেই ঘরের কলিং বেল বেজে ওঠে আর মিঠুন স্বর্ণালি কে ছেড়ে দেই ভয়ে। তারপর দরজা খুলতেই দেখে মিঠুনের বউ বাইরে দাঁড়িয়ে আছে পুরো বৃষ্টি তে ভিজে ভিজে এসেছে। মিঠুন দেখে অবাক হয়ে গেলো…..

বাচ্চা করার কন্ট্রাক্ট by Mr idiot

কেমন লাগলো গল্পটি ?

ভোট দিতে হার্ট এর ওপর ক্লিক করুন

সার্বিক ফলাফল 3.2 / 5. মোট ভোটঃ 19

কেও এখনো ভোট দেয় নি

1 thought on “sex story in bangla স্যারের সাথে গোপনীয়তা ১ by piyali Das”

Leave a Comment