porpurush sex choti স্ত্রীর শরীরসুধা – 3

bangla porpurush sex choti. রবির সঙ্গে যখন ওর ঘরে ঢুকছিলাম তখন সারা শরীরে কেমন একটা হচ্ছিল । দুজনেই জানতাম কি হবে কিন্তু শেষ একটা বিবেকবোধ জেগে উঠছিল । কিন্তু মদের নেশা টাকে ঘুম পাড়িয়ে দিছিল । মাঝে মাঝেই ভাবছিলাম প্রত্যেক নারীর জন্যে একজন স্বপ্নের পুরুষ থাকে । রবির চেহারার সঙ্গে আমার সেই স্বপ্নের পুরুষের বর্ণনা মিলে যাচ্ছিল । আমি আমার ঘরের দিকে যাচ্ছিলাম কিন্তু হঠাত রবি আমার হাত ধরে টানলো । বলল এস না । মন্দারমনির ওই সুন্দর পরিবেশে রবির হাতছানি আমি উপেক্ষা করতে পারলাম না ।

[সমস্ত পর্ব
স্ত্রীর শরীরসুধা – 2]

ও বলল স্বপন আর পারমিতা তো অনেকক্ষণ ওখানে থাকবে , একটু কফি খাবে এসই না । বলে টানলো আমাকে । আমি কিছু ভালো করে বোঝার আগেই রবি আমাকে নিয়ে ঘরে ঢুকে দরজাটা বন্ধ করে দিল ভেতর থেকে । তারপরে তাকালো আমার দিকে । উফফ মাগো । কেমন জানি মনে হলো, আমার স্বপ্নের পুরুষ ও । বন্ধ ঘরে বন্ধুর স্বামীর সঙ্গে আমি ? ভাবা যায় ? যে মেয়েকে বাবা মা লজ্জাবতী করে রেখেছিল । সে মেয়ে আমি সোনালী বন্ধুর বরের সঙ্গে বন্ধ দরজার আড়ালে ইস ।

porpurush sex choti

ওকি করছে রবি ? বলিষ্ঠ এক টানে আমার বেপথু শরীরটাকে ওর বুকের দিকে টানলো । আমি এলিয়ে পরলাম । এই আমার প্রতিরোধ । নেশায় আর তারপরে আরেক নতুন এক মাদকতায় আমার নরম তুলতুলে শরীরটা তিরতির করে কাপছে রবির পেশল বুকে । পাচ ফুট দশ ইঞ্চি লম্বা রবির সঙ্গে আমার সুন্দর পাচ ফিট তিন ইঞ্চি শরীরটা দারুন মানিয়েছে তো । আয়নায় প্রতিফলনে দেখলাম । আজ ওর কথা ভেবেই এই কালো শাড়িটা পরেছিলাম । এই কালো শাড়ি জড়ানো শরীর এখন ওর হাতে ।

মুগ্ধ চোখে তাকিয়ে ও । আমিও চোখ সরাতে পারছিনা । ইস ও যদি আমার বর হত? বুঝতে পেরেছে ও । ঠোটদুটো নেমে আসছে । না না না । চোখ বুজলাম আমি লজ্জায় । আর মাগো । স্পর্শ করলো ও আমাকে । ঠোট দিয়ে ইস । আল্টো চুমুতে শিউরে উঠছে আমার শরীর কি করব আমি ? কি করব ? বলে দাও আমাকে কেউ প্লিস । ঠোটে ঠোট দিল বিদ্যুতের সংকেত । উফফ । আল্টো চুমু আরেকটা মাগো । আর পারলাম না । অসভ্যটা আমার কমলালেবুর কোয়ার অধিকার চাইছে । porpurush sex choti

মনে মনে ভাবলাম এগুলো তো ওর-ই । সুন্দরী নারীর দেহের অধিকার তো বীর্যবান পুরুষেরই । রবির মাদকতাময় পাচ ফিট দশ ইঞ্চির পেশল শরীরটাকে এই মুহুর্তে আমার ভীষণ ভালো লাগছে । স্বপন তো পারমিতার সঙ্গে , ওকে ঘরেও বোধহয় নিয়ে যাবে । দিলাম কোয়াদুটো খুলে । রবির জিভটা আসতে করে লাগিয়ে দিল আমার জিভে । উফফফফ শিরশির করছে জিভ তো নয় সারা শরীর মাগো । তীব্র লজ্জায় কে যেন সিদুর ছড়িয়ে দিল আমার গালে । ভীষণ আসতে করে লজ্জাভরা চুম্বনে আমাদের জিভদুটো জড়িয়ে গেল । আমার প্রথম চুম্বন রবিকে । ইসসস ।

চুম্বন আর দংশন

প্রথম চুম্বনের পরে একটা ভীষণ অপরাধবোধ আসছিল মনে এক দিক থেকে । ইশ আমি বন্ধুর বরকে চুমু খাচ্ছি তাও আবার জিভে জিভ দিয়ে মাগো । অন্যদিকে একটা ভীষণ উত্তেজক শারীরিক মিলনের ইচ্ছে জাগছিল ।

রবি বলল – উফ পারমিতা কি দারুন লাগছিল তোমাকে । দেখতে ইচ্ছে করছিল কিন্তু পারছিলাম না ।

– রবি প্লিস আর করনা । আমি থাকতে পারছিনা । আমি বিবাহিতা । এবার থাক ।

– হ্যা বেশি কিছু করবনা । শুধু আর কয়েকটা চুমু আর তারপরে তুমি তোমার ঘরে আর আমি আমার । এসই না ।

– ইস লজ্জা করছে । কি অসভ্য তুমি আগে জানতাম না ।

– এস আরেকটু কাছে । এইবার ।

আমাকে চেপে ধরে চুমু খাচ্ছে ও । আর আমিও দুএকটা মাঝে মাঝে । ঠোঁটে ঠোঁটে এই ভালবাসা কি মিষ্টি । ছাড়তেই পারছিনা । জিন-এর নেশার চেয়েও বেশি নেশা । জিভে জিভ জড়ানো । রবির জিভটা দাঁতে দাঁতে কাটছি আর তখন ও আরো জোরে পিষে ধরছে আমাকে । এই মস্তিতে ছাড়তে পারছিনা কেন কে জানে উফ । রবি আমাকে বলল কেমন লাগছে ? ওকে নিবিড়করে চুমু দিয়ে ঠিক ফূলশয্যার বৌএর মত বললাম উমমমম । শরীরের স্পর্শে শরীর জাগছে । রবির মধ্যের আদিম পুরুষটাকে জাগিয়ে দিয়েছি । porpurush sex choti

লম্বা পেশল রবির আদর আমাকেও জাগিয়ে তুলেছে । আমি বুঝে গেছি রবির চাবুকের মত তাগড়া শরীরটা আমার আজ রাতে চাই । নিজের তলপেটের শিরশিরানি টের পাচ্ছি যা বিয়ের পরে গত পনের বছরে কখনো পাইনি । রবিও আমার অবস্থা বুঝে গেছে আমার ঘন ঘন নিশ্বাস আর নাকের পাটা দেখে । আর পারছিনা । অসভ্যতার পাগলকরা আদরে ইস মাগো ।

দুজনে বিবাহিত নারীপুরুষের মত অসভ্য চুম্বন আর দংশনে মগ্ন । আমার সুন্দর পাতলা ঠোঁটে রবির কামড়ে আর লাগছেনা আমার । মাঝে মাঝে রবিকেও আলতো আলতো কামড় দিচ্ছি ওর উত্তেজনা বাড়াবার জন্যে । উফ আমার সারা দেহে ওর হাত আমার শরীরে আগুন জ্বালিয়ে দিছে । বুকে ঘাড়ে আর আমার পাতলা সিফনের শাড়ির আড়ালে আমার লজ্জাভরা নাভিতেও । উফ আদর করতে পারে বটে । আমার সব বাধা ভেঙ্গে পড়ছে । porpurush sex choti

নাভির হাতছানি

– আর না রবি থাক হয়েছে ।

– এই মিষ্টি জায়গাটাতে শুধু একটা চুমু দেব । তারপরেই ব্যাস । তুমি তোমার ঘরে আর আমি আমার ।

আমার নাভিতে ওর হাত । অসভ্য টা কি চাইছে মাগো । ঐখানে কিছু করলে আমি আর থাকতে পারিনা কে বলল ওকে?

– প্লিস না রবি । স্বপন কি ভাববে ?

– স্বপন এখন পারমিতার কোলে শুয়ে আছে । তুমি এখন ঘরে গেলে ওদের অসুবিধা হবে ।

– অসভ্য রবি না না ।

– লক্ষীটি এস ।

– সুধু একটু

আমার সিফনের শাড়ি সরালো রবি । তাকিয়েই আছে । পুরুষের মুগ্ধ দৃষ্টি অনেক দেখেছি কিন্তু এই নির্জন ঘরে তার মাদকতাই আলাদা । আধোঅন্ধকার নির্জন ঘরে এক পরপুরুষকে নিজের নাভি দেখাতে কি উত্তেজনা মেয়েরাই জানে । porpurush sex choti

– কি হচ্ছে রবি ? আগে দেখনি নাকি?

– উফফ সোনালী । তোমার শরীর যে এত সুন্দর জানতেই পারতাম না ।

আস্তে আস্তে রবির একটা একটা করে আঙ্গুল ঠেকছে আমার নাভিতে । আমার চোখ বোজা । যেন একটা বন তাতে আগুনের একটা ফুল্কিতেই দাবানল জ্বলে উঠবে । ঘন ঘন গভীর নিশ্বাসে আমার ফর্সা নাভি কেপে কেপে উঠছে । আর নাভিমূলে রবির একটা একটা করে আঙ্গুল খেলা করছে । দাঁতে দাঁত চেপে আমি – পনের বছরের বিবাহিতা নারী । অনেকক্ষণ থেকেই অনুভব করছি আমার গোপন অঙ্গ আস্তে আস্তে সিক্ত হয়ে উঠছে ।

– না-আ-আ-আ-আ….. porpurush sex choti

– বৃথা প্রতিবাদের মুহূর্ত । রবির জিভের খেলা এবার । লকলকে জিভটা আমার ফর্সা নাভিমূলে খেলছে । আমি মস্তিতে পাগল । মৃদু শীত্কার বেরিয়ে আসছে । ইস আমার শিক্ষা , সতীত্ব , ভালবাসা , বিবাহিত জীবনের সততা সব ভুলে আমার আদিম নারী রবির মাথাটাকে নিজের নাভিতে চেপে ধরেছে । খেলছে ওর চুল নিয়ে আর কাপছে । আদর করছি আমি ওকে । চুমুর পর চুমু নাভিতে । আমার প্রতিবাদের ভাষা আদরের শীতকারে পরিনত হচ্ছে । উমমম নাআআ উমমমম । শেষে উমমম

আমার গালে কে যেন লজ্জার সিন্দুর ঢেলে দিয়েছে । চোখ চকচক করছে । বললাম আর পারছিনা গো ।

অন্তর্বাসে আন্তরিকতা

রবি হাসলো । বলল জানতাম পারবে না । আর লজ্জা কোরনা । এখন তোমার বন্ধু স্বপনের কাছে । ওরা আসবে না । এবার এস ।

আমি এলিয়ে পরলাম রবির বুকে । নববধুর লজ্জায় । প্রত্যেক নারীর জীবনেই এই মুহূর্ত আসে । আমার সুধু বিয়ের পনের বছর পরে এসেছে । porpurush sex choti

রবি হালকা এক টানে আমার কালো সিফনের শাড়িটা খসাতে চাইছে । ইস । আমাকে তো সমর্পণ করতেই হবে । আস্তে আস্তে খুলে পড়ছে । ওর হাত আমার কোমরের কাছে ভেজা নাভির তলায় । সায়ার ভেতরে আঙ্গুল ঢুকিয়ে খুলে দিল গিট । অসভ্য হাসি হাসলো ও । বলল কি সুন্দর দেখাচ্ছে আমার সোনালী-কে । জবাবে আমার আঙ্গুলগুলো আস্তে আস্তে ওর শার্ট-এর মধ্যে ঢুকিয়ে একে একে বোতামগুলো খুলে দিলাম । ঘামে ভেজা বুক রবির । আঃ পুরো পেটানো চেহারা । ঠিক যেমন ভেবেছিলাম ।

– এই তুমি ব্যায়াম কর না রোজ ?

– কেন ভালো লেগেছে আমার ফিগার ?

– খুব ভালো মাসল তোমার । ছোট বেলা থেকেই করতে তাইনা ?

– হ্যা সোনা । porpurush sex choti

ইস কি অসভ্যের মত রবির গায়ে হাত বুলোচ্ছি আমি । কোলনের গন্ধ ভেদ করে রবির শরীরের পুরুষালি গন্ধটা উপভোগ করছি । ইস মাগো । আলতো সুরসুরি দিতে বুকে রবির মধ্যে দানবটা জেগে উঠলো ।

– কুরকুরি ভালো লাগছে না ।

– উফ পারছিনা তোমাকে ভীষণ আদর করব এবার ।

ওর কানে মুখ রেখে বললাম

– আর আমি আদর খেতে না চাইলে ? বলে রবির বুকের বৃন্তে আলতো করে একটা কুরকুরি দিলাম । শিরশির করা কুরকুরি ।

রবি জেগে উঠলো । আমার সায়ার শেষ প্রতিরোধ ফিতে তাতে হাত দিল । porpurush sex choti

প্রত্যেক মেয়েরই শেষ প্রতিরোধ এই সায়ার ফিতে । কিন্তু কেউ-ইকিছু করতে পারেনা কারণ পুরুষের একটা হাত সেই সময় নাভি স্পর্শ করে । আমার সামনেই মেঝেতে খসে পড়ল আমার কালো সায়া । আর সেই সময় আমি বুঝলাম রবির হাত আমার ব্লাউসের বোতামগুলো-ও আস্তে আস্তে খুলে দিছে । সায়ার ওপরেই ব্লাউস-টা খসে পড়ল ।

রবি দেখছে আমাকে । কি দারুন ভালো লাগছে । ইচ্ছে করছে ওর প্যান্ট-তার চেনে হাত দেই কিন্তু ভীষণ লজ্জায় চোখমুখ ঢেকে আমি । দুই হাত উরুসন্ধিতে । রবি-ই আমার লজ্জা ভেঙ্গে দিল । একটা হাত টেনে আনলো ওর নাভির কাছে ।

আমি সুযোগ নিলাম ।

– অসভ্য । আমার সব খুলে দিয়েছ । আমিও দেব ।

লজ্জাভরা হাত দিয়ে প্যান্ট-এর চেন-টা আস্তে আস্তে নিচে নামাতে নামাতে আমার হাত বুঝলাম লাগছে জাঙ্গিয়ার নিচে রবির উদ্ধত লিঙ্গে । উফ দামাল পুরুষের স্বপ্নই সুধু দেখেছি কাছে পাইনি তো । এক স্পর্শেই বুঝলাম স্বপনের লিঙ্গের চেয়ে অনেক বড় ওরটা । ইস । আরেকটু তারপরে খসে পড়ল অর আবরণ । porpurush sex choti

দারুন দেখাচ্ছিল রবিকে । অন্তর্বাস পরে । আমিও । আমাদের দুজনকে দারুন মানাচ্ছিল ।

আয়নার সামনে আমাকে চেপে ধরে রবি বলল দারুন মানাচ্ছে না ?

লজ্জাঘন মুখে বললাম বর-বৌএর মত?

হাসলো রবি বলল পারমিতার বদলে তোমাকে যদি পেতাম বিয়ের রাতে?

হেসে বললাম তাহলে কি করতে ?

দুষ্টু হেসে রবি বলল সুধু তোমাকে বলতাম আমাকে ভালবাসতে ।

আমি বুঝলাম রবির ইঙ্গিত । ওর বুকে ঢলে পরলাম । চুমুর পর চুমু দিলাম পেশল বুকে । ভীষণ উত্তেজিত রবি-ও আমাকে খাটের ওপর শুইয়ে দিয়ে নিজে সুয়ে পড়ল । তারপরে আমাকে তুলে নিল ওর উপর । আমি বুঝলাম ও কি চায় । অন্তর্বাসপরা আমার শরীর ওর উপরে । স্তনটা পিষে যাচ্ছে রবির বুকে । আর ও একটা হাত দিয়ে আমার ভারী পাছা টিপছে । ইস আর তাতে আমার নরম তলপেটটা আরো পিষে যাচ্ছে রবির তলপেটের সঙ্গে । রবির বিরাট লিঙ্গটা জেগে উঠেছে । উফ মাগো স্বপনের প্রায় ডবল হবে । আমি বুঝে গেছি আমার শরীরটাতে অনেকদিন পরে ভীষণ সুখ দেবে ও । মাগো । porpurush sex choti

কোমরের ওঠানামা

আমার সুন্দরী নারীশরীর রবির উপরে । স্তনে ঠেকছে ওর পেশল বুক । আমার স্তন পুরো শক্ত আনন্দে । রবিও সেটা জানে । উরুতে উরু ঠেকছে । পুরো নগ্ন উরুর স্পর্শে নিশ্চই রবির খুব ভালো লাগছে । কিন্তু আসল উত্তেজনার কেন্দ্র আমাদের উরুর মাঝখানে । প্রথমে লজ্জা লাগছিল কিন্তু যখন ও নিজের জাঙ্গিয়া-টা ঠেকিয়ে দিল আমার উরুসন্ধিতে আমিও লোভে থাকতে পারিনি ।

ভীষণ ইচ্ছে হচ্ছিল ঐখানে ওর স্পর্শ পাবার । আর আমার উরুসন্ধির তুলতুলে স্পর্শ পেয়ে রবির অসভ্যতা পুরো জেগে উঠলো । ভীষণ আনন্দে উপভোগ করলাম ওর এই উত্তেজনা । উরুর আলগা ঘষতে আরো উত্তেজিত হচ্ছিল ও । তারপরে আমি আর থাকতে না পেরে আসতে আসতে রবির উরুর ওপর আমার কোমর আস্তে আস্তে ঘষতে শুরু করলাম । উফ মাগো । রবিও তলা থেকে ওর কোমর নড়াতে শুরু করেছে ইশ ।

– ভালো লাগছে সোনালী ?

– জানো না যেন – অসভ্য !

– পুরো গরম হয়ে গেছে জানো । porpurush sex choti

– জানিনা আবার । মাগো কি অসভ্যের মত তোমারটা ।

– কেন স্বপনের-টা তো দেখেছ ।

– ইশ তোমারটা আরো অসভ্য । আর ভীষণ গরম । আগে কোনদিন কেউ এত গরম করেনি ।

– স্বপন-ও না ?

– জানি না । মনে হয় স্বামীর সঙ্গে এরকম হয়না । ইস জলের মধ্যে তুমি যখন নিয়ে গেছিলে কেমন নতুন উত্তেজনা হচ্ছিল ।

– কেন আমারটা বড় বলে ?

– জানিনা যাও । সব কি বলে দিতে হবে ? মেয়েরা সব বলতে পারে না ।

– আচ্ছা বল আমারটা স্বপনের চেয়ে বড় কিনা ?

– জানিনা তবে পারমিতার ভাগ্য ভালো সেটা বুঝেছি । porpurush sex choti

– হিংসে হচ্ছে?

– একটু একটু । ও তো সব সময় তোমাকে পায় ।

– এখন তো তুমি আমার । স্বপন ওকে আদর করে ঘরে নিয়ে যাবে । তারপরে ওরা আদর ভালবাসা করবে ।

– ইশ আর তুমি আমার সঙ্গে না ? অসভ্য ।

– আর পারছিনা সোনালী । ভীষণ উত্তেজনা হচ্ছে । তোমার ওটা নামিয়ে দেই ?

– উফ আমিও । এস ।

দুরন্ত সঙ্গম

আমি আর থাকতে পারছিলাম না । রবির পুরুষালি আলিঙ্গন , দৃঢ় লিঙ্গের স্পর্শ, বাহুর পেষণ , সব আমাকে ভীষণ একটা উত্তেজক মিলনের দিকে নিয়ে যাছিল । একদিকে অপরাধবোধ হচ্ছিল , আমি মধ্যবিত্ত বাঙালি ঘরের স্ত্রী । আমার বাবা মা কি ভাববেন শুনে ? কিন্তু অন্যদিকে ভাবছিলাম বিবাহিত জীবনে তো চরম সুখ স্বপন আমাকে দিতে পারেনি, কিন্তু আমি কেন ওই সুখের অধিকারী হব না ? আমার নারীদেহ তো সেই সুখ নিতে অপারগ নয়? শুধু তো একজন পুরুষেরই দরকার আমার । porpurush sex choti

আর স্বপন তো পারমিতার প্রতি আকৃষ্ট । আমি কেন হব না রবির প্রতি ? সত্যি বলতে কি ভীষণ একটা ইচ্ছে হচ্ছিল ওকে ভালবাসতে । মোটাসোটা পারমিতার চেয়ে পেশল রবির আমার মত খাজুরাহোর নারীমূর্তির মত দেহ পছন্দ হবে জানতাম-ই তো । আর এই নারীদেহ কোনো সুঠাম চেহারার পুরুষ যদি না ভোগ করে তবে কি দাম আমার এই নারীদেহর ? তলপেটে ভীষণ একটা শিরশিরানি হচ্ছিল রবির যৌনাঙ্গের স্পর্শে । ওর শরীরের মধ্যে আমি কেঁপে কেঁপে উঠছিলাম আনন্দে আর ভালবাসায় ।

রবিও পাগল হয়ে গেছিল আমার এই মাতাল শরীর নিয়ে । আসতে আসতে করে আমার প্যানটি নামছিল ও । আর আমি ওর জাঙ্গিয়া । হাটুর ওপরে চলে যেতেই রবি ওই অবস্থাতে আমাকে চেপে ধরল । জীবনে প্রথম রবির কালো সাপের মত আট ইঞ্চি লম্বা লিঙ্গের স্পর্শ পেলাম আমার পেলব তুলতুলে যোনিতে । আমাকে চেপে রবি বলল সোনা , ভালো লাগছে এবার ? আমি হিসহিস করে বললাম , জানিনা আর পারছিনা মাগো তোমার কেমন লাগছে? রবি বলল দাড়াও, আরেকটু নামিয়ে দেই, বলে অন্তর্বাস দুটো আমরা পুরো খুলে ফেললাম । porpurush sex choti

মিষ্টি হেসে ওর দিকে লজ্জাভরা চোখে তাকালাম যেন আমি ওর বউ । সেই সময় কেন জানিনা মনে হচ্ছিল, পারমিতা নেই, রবি আমার বর । ওকে সব দিয়ে দিতে ইচ্ছে করছিল, দেহ মন যা আছে । স্বপনের সঙ্গে পনের বছরের বিবাহিত জীবনটা ভাসিয়ে দিয়ে ইচ্ছে করছিল রবির সঙ্গিনী হতে । ইস আমার লজ্জাভরা মুখ দেখে রবির কম বেড়ে গেল । পিঠ থেকে ব্রার হুক খুলে আনলো । তারপরে সম্পূর্ণ নগ্ন আমার নর্তকীর ফিগারের দিকে তাকিয়েই থাকলো । আমি ওর পুরুষের মুগ্ধ দৃষ্টি উপভোগ করছিলাম । কিন্তু একটু পরেই থাকতে পারলনা ও । আমাকে ওর ওপরে চেপে ধরল ।

নিবিড় বাহুর পেষণের মধ্যে আসতে আসতে করে আমি আমার ভারী পাছাটা নামিয়ে দিলাম । কালো সাপটা পুরো খাড়া হয়ে আসতে আসতে ঢুকতে চাইছে আমার ভেতরে । পাছা নামাতে নামাতে বুঝলাম লিঙ্গের মুখটা আমার যোনির দরজায় । আরেকটা মিষ্টি পাছার দুলুনিতে বুঝলাম রবি আমার ভেতরে আসছে । ও আমার পাছা ধরে আরেকটা টান দিতেই আমি বুঝলাম ওর বিরাট লিঙ্গের অনেকটাই আমার শরীরের মধ্যে । উফ অস্ফুট আনন্দে আমি শীত্কার করে উঠতেই রবি ওর কোমর তুলে এক পুরুষালি ধাক্কা মারলো আমার গোপন অঙ্গে । porpurush sex choti

জীবনে প্রথম বুঝলাম আট ইঞ্চি লিঙ্গ যোনিতে ঢুকলে একটি বাঙালি মেয়ের কেমন লাগে । আনন্দে শীত্কার করে উঠলাম উমমমমম আঃ মাগো । রবি বলল কি হলো ? লজ্জায় মুখ নামিয়ে বললাম অসভ্য ভীষণ অসভ্য তুমি । রবির লিঙ্গ তখন পুরো ঢুকে গেছে । দারুন সুখে বুঝলাম ওর মুন্ডি টাআমার ভগাঙ্কুরে নিবিড় স্পর্শ দিছে । বিয়ের পনের বছরে ঐখানে কোনো পুরুষের স্পর্শ পাইনি আমি । তৃষিত এই নারীশরীর ঢেলে দিলাম ওর ওপরে । চুম্বনে ঢেলে দিলাম বিষাক্ত স্পর্শ অর ঠোটে । চুমুতে চুমুতে ভালবাসায় পাগল হয়ে গেলাম আমরা ।

আমার নারীদেহের সব মধু ঢেলে ঢেলে দিলাম ওকে । মধুর ছন্দে ছন্দে একসঙ্গে কোমর দোলাচ্ছি আমরা দুজনে এক বিবাহিত স্বামী আর আরেক বিবাহিতা স্ত্রী । উফফ কি আনন্দ মাগো । কোনো কথা না বলে আট ইঞ্চি লিঙ্গ দিয়ে জোরে জোরে রমন করছে ও আমাকে যেন আমি ওর বিবাহিতা স্ত্রী । আমার শরীরে ওর অধিকার প্রতিষ্ঠা করছে ইস ইস মাগো । আমিও কি আর থাকতে পারছি আরামে ? নববধুর মত লজ্জাতেই আমার তানপুরার মত নিতম্ব দোলাচ্ছি ওর তালে তালে । দুজনেই বুঝতে পারছি একটা নতুন চরম সুখের দিকে আমরা যাচ্ছি যা বিবাহিত জীবন আমাদেরকে দেইনি । porpurush sex choti

ঠিক যে সময় চরম আনন্দ দুজনে দুজনের শরীর থেকে পাগলের মত নিছি আসতে করে দরজা খোলার আওয়াজ হলো । আমি ভয়ে উঠতে যাব রবি বলল লজ্জা পেওনা , তোমার বর আসছে পারমিতাকে নিয়ে ওরা সব জানে । একটা দারুন নিষিদ্ধ আনন্দের শিহরণ সুরু হলো আমার শরীরে । ইচ্ছে হলো স্বপনকে দেখাতে একটা দামাল পুরুষ আমার উপোসী শরীরের জ্বালা কিভাবে মেটাতে পারে । নিবিড়ভাবে আমরা সঙ্গম করতে শুরু করলাম । রবিকে ওপর থেকে জোরে জোরে উপভোগ করছি আমি তখন ।

হিসহিস করে বলছি সোনা জোরে আরো জোরে দাও মাগো পারছিনা তো । শুনুক স্বপন আমার কামের আওয়াজ । যে কামের আওয়াজ ও সুনতে পাইনি গত পনের বছরে । দেখুক আমার উপোসী শরীরটা কিভাবে উপভোগ করে । রবি তো অবাক কিন্তু তাল রাখতে রাখতে নিচ থেকে জোরে জোরে ধাক্কা মারছে আমাকে । সেই ধাক্কাতে আমি আরো কামার্ত হয়ে পরছি মাগো । রবি বলল ভালো লাগছে ? নগ্ন ঘর্মাক্ত আমরা দুজন আদিম লালসায় আর রিরংসায় উন্মত্ত । মিষ্টি করে বললাম উমমমমম কত্ত দিন পরে মাগো । মেরে ফেল আমাকে সোনা । porpurush sex choti

স্বর্গ

আরচোখে পাশের বিছানার দিকে তাকিয়ে দেখি স্বপন আর পারমিতা সম্পূর্ণ নগ্ন । কেন জানিনা ভীষণ উত্তেজনা হচ্ছিল ওদের দুজনকে দেখে । বেশ ভালই স্বামী স্ত্রীর মত । তবে কি আমাদের পনের বছরের বিবাহিত জীবন সম্পূর্ণ মিথ্যে ? একসঙ্গে এতদিন থাকা এত জায়গায় যাওয়া , সুকন্যা , এতদিনের ঘরসংসার ? সব ছেড়ে দিয়ে কিকরে স্বপন পারমিতাকে জড়িয়ে ধরে শুয়ে পড়ল ? ইস দেখতে ইচ্ছে হচ্ছে ওদের ভালবাসা । ভীষণভাবে । মাগো কি হলো আজ আমার ? ভদ্রঘরের বাঙালি গৃহস্থ নারী আমি , কি হলো আমার ? আর পারমিতার-ও ? স্বপনকে জড়িয়ে দুজন নিবিড় চুম্বনে মগ্ন । আমি বুঝলাম এই প্রকৃতির নিয়ম ।

যে পুরুষ যে নারীকে চায় তাকে শেষ পর্যন্ত নিয়ে নেয় । বিয়েটা তো বাইরের সম্পর্ক । আমি তো সারাজীবন স্বপনের সঙ্গে সংসার-ই করব । কখনো ওকে ছেড়ে যাব না । স্বপন-ও আমাকে ছেড়ে যাবে না । তাহলে তার মধ্যে নিজেদের যৌন উত্তেজনা পূর্ণ করার জন্য যদি ওদের কাছাকাছি আমরা আসি তাহলে দোষ কি ? তখন ভীষণ আনন্দ দিছে আমাকে রবির বিরাট লিঙ্গটা । আমরা ওদের দিকে দেখছিনা কিন্তু আবার দেখছিও । প্রথম মিলন তো লজ্জা স্বাভাবিক । তীব্র আনন্দে রবি আমার যোনিমন্থন করছে । porpurush sex choti

উফ মাগো কি ভীষণ ভালবাসতে পারে অসভ্যটা । আমার দুষ্টু আমার অসভ্য ও । মাগো ভীষণ ভালবাসতে আমি শীত্কার করছি স্বামীর সামনেই । উফ লাগছে রবি আর না আর না । রবি বলল সোনালী তোমাকে করতে কি দারুন আরাম উফফ । আমিও বললাম রবি আমার আরাম হচ্ছে ভীষণ । আর পারছিনা মাগো । স্বপন তো কখনো দেখেনি আমার নারী শরীরের ওই অবস্থা কি ভাবছে কি জানে কিন্তু আমি তো পারছিনা নিজেকে সামলাতে । রবির এক একটা ধাক্কাতে ভীষণ মৃদু ভালবাসার শীত্কার না চাইতেও বেরিয়ে আসছে ।

আমাদের শরীর ঘামে ভেজা । রবির পেশিগুলো ফুলে উঠেছে আহ কি দারুন দেখাচ্ছে ওকে মাগো । কেন আমার ফুলশয্যার রাতে এলোনা ও । শরীরে যে এত সুখ কখনো বুঝিনি আমি । বরের সামনেই আমার তানপুরার মত পাছা বারবার কেঁপে উটছে রবির দামাল সঙ্গমে । অসভ্যের মত পাছা দোলাতে শুরু করলাম রবিকে পাগল করার জন্য । যে পাছা স্বপনের অত আদরে কখনো দোলেনি । স্বপন কি দেখছে ? আমার নর্তকীর মত সুন্দরী দেহ দুলিয়ে দুলিয়ে আমি রবিকে ভীষণ উত্তেজক সঙ্গমে আহ্বান করলাম । porpurush sex choti

ইস আর লজ্জা নেই । হিসহিস করে বললাম আরো জোরে দাও । রবি প্রচন্ড জোরে দিছ্হে । বলল কেমন লাগছে সোনা ? আমি বললাম মাগো কখনো আগে কেউ দেইনি কি আরাম তোমার ওটাতে । ঘষে ঘষে দাও । পারমিতাও সঙ্গমে মগ্ন স্বপনের সঙ্গে । ছন্দে ছন্দে ওদের পাছা দুলছে । রবি বলল আর পারছিনা এবার আসছে । হিসহিস করে আমি বললাম না প্লিস ভেতরে ফেলনা । রবি ওর উরু দিয়ে আমার পাছাটা নিবিড় বন্ধনে বেঁধে ফেলল । বললআর তো ছাড়তে পারছিনা । তোমাকে না ভরে থাকি কি করে ?

আমার মনে হলো চরম আনন্দের সময় প্রেমিক-কে সব দিয়ে দিতে হয় । ভীসন ভালবাসতে ইচ্ছে করলো । বললাম আমিও পারছিনা সোনা । রবি জিগেশ করলো আসছে তোমার ? সব লজ্জা ভুলে গিয়ে ওর বুকে মুখ রেখে বললাম উমমমমম , অনেকক্ষণ ধরেই , তোমারটা এত আরাম দিছে কি করব । রবি আমার পাছা চেপে ধরল । বলল এবার ? স্বামীর সামনেই আমি লজ্জাভরা মুখে ওকে বললাম দেবে ? রবি পাগলের মত কমর দোলাতে দোলাতে বলল নেবে না ? আমি বললাম উফ পারছিনা সোনা পুরো ভরে দাও আমাকে তোমারটা দিয়ে । porpurush sex choti

কতদিন পরে মাগো । মেরে ফেল আমাকে । রবি বলল সোনালী আমি আর পারছিনা নাও । বাধ্য স্ত্রীর মত রবির ঐখানে একটা শেষ কামড় দিলাম । বুঝলাম আট ইঞ্চি লম্বা লিঙ্গটা তৈরী আমার তৃষ্ণার্ত উপোসী শরীরে বর্ষা আনতে । আমার অজান্তেই আমার নিজের ঝরনা খুলে গেল প্রথমবার ! ভগাঙ্কুরে তীব্র যাতনা অনুভব করতে করতে রাগমোচন হচ্ছে আমার । আট ইঞ্চি লিঙ্গটা তীব্র আনন্দে তার বিষ ঢালছে । উফফ ছোবলের কি আনন্দ । তিরতির করে কাপছে আমার ভগাঙ্কুর । নিবিড় চুন্বন করলাম দুজন দুজনকে । আর ভেসে গেলাম আমি ওর সঙ্গে এক তরণীতে ।

পাশের বিছানা

আমার আরামের ঘোরে কেমন একটা আচ্ছন্ন অবস্থা । তলপেটে রবি ঢেলে দিয়েছে ওর ভালবাসার রস । নিবির আলিঙ্গনে এখনো আমরা বাঁধা । ঘন নিশ্বাস এখনো । রবির ঘামেভেজা দেহটা আমার নারীদেহের সঙ্গে লেপ্টে আছে । সিন্দুর ঘেঁটে গেছে কিন্তু মুখে নিশ্চয় ভীষণ সুখের ছাপ । আমি কার বউ? রবির না স্বপনের ? পারমিতা কার বউ ? এই ভাবতেই চোখ সরে গেল পাশের বিছানার দিকে । সম্পূর্ণ উলঙ্গ পারমিতাকে নিবিড় রমন করছে স্বপন । পারমিতার ওপরে আমার স্বামী । নাকি পারমিতার স্বামী এখন ও ?

বাধ্য স্ত্রীর মত ভীষণ ভালবাসতে পারমিতা ওর পা দুটো তুলে দিয়েছে স্বপনের কাঁধে । ও কি আমার চাইতেও বেশি আরাম দিছে স্বপনকে ? স্বপন অর শরীরটাকে জোরে জোরে পিষছে । কই আমাকে পেষার সময় তো এত জোর থাকে না স্বপনের । তাহলে কি প্রাকৃতিক নিয়মেই ওরা এক দোসর । থাক তাহলে , আমার রবিকেই ভালো লাগে । ওহ কি দারুন সুখ দিয়েছে আমার শরীরে ও ।এদিকে পারমিতা আর স্বপনের সঙ্গমের আওয়াজ সুনতে পাচ্ছি । অসভ্য পারমিতাটা আরো জোরে করতে বলছে স্বপনকে । ও কি পারবে ? porpurush sex choti

আঃ মাগো স্বপন কি আরাম ওখানে আরেকটু দাও – ইস । আদুরে গলায় বলছে পারমিতা । আর আমার বর কোমর তুলে তুলে দিছে পারমিতার উরুর খাঁজে । আমার স্ত্রীর অধিকার পুরো নিয়ে নিয়েছে ও । ভারী পাছা তুলে তুলে ধাক্কা মারছে স্বপনকে । বড় বড় স্তন পেয়ে স্বপনের কি ভালো লাগছে ? লাগছে নিশ্চয় নয়তো অত সুখ দিছে কি করে পারমিতাকে ? কোনো লজ্জা নেই পারমিতার । পীনোন্নত বুকে আমার স্বামীর আদর উপভোগ করছে । বলল এই স্বপন , আরাম হচ্ছে তো ? স্বপন বলল ভীষণ ইস তোমার তো পুরো ভিজে গেছে ।

পারমিতা বলল ভিজবে না এত সুখ পেলে ? মাগো আরো জোরে জোরে দাও , আমি নিতে পারব ? ওকি করছে স্বপন ? পারমিতার পাছাটা পুরো তুলে ধরে ওর শরীরটাকে পুরো দুই হাতে ধরল । তারপরে ওর উরু দুটো ধরে তুলে জোরে জোরে হামানদিস্তা মারতে শুরু করলো ওর যোনিতে । পারমিতা বলে উঠলো না স্বপনদা না মরে যাব । স্বপন কি আমাকে দেখছে ওর দম ? দুই পা ধরে পারমিতার যোনিতে ভীষণ জোরে জোরে মারছে ও । বলছে নাও নাও আমাকে ? পারমিতা খিলখিল করে হাসছে ইস স্বপনদা আগে জানতাম না তো । porpurush sex choti

স্বপন বলল তোমার মত সুন্দরীকে তো পাইনি আগে । কামকেলি করছে ওরা স্বামী স্ত্রীর মত । উফ আমার কেন এত উত্তেজনা হচ্ছে দেখে ? আমার স্বামী তো রবি । করতে করতে আর থাকতে পারল না ওরা । পারমিতা হিসহিস করে বলল আমার বরকে আমার আসছে । স্বপনের চোখে জয়ের হাসি । আমার সামনে এক নারীকে চরম আরাম দিছে ও । বলল দেব ? পারমিতা জোরে জোরে নিজের কোমর দোলাতে দোলাতে বলল হ্যা আমার চাই । প্লিস আর থাকতে পারছিনা স্বপনদা ।

মেরে ফেল কি ভীষণ আরাম । স্বপন পারমিতার দুই উরু ধরে ওর পাছা দোলাচ্ছে । মারতে মারতে বলল আমি আসছি । ঠিক সেই সময় পারমিতা বলল আমার ওপরে এস । স্বপন অর উরু ছেড়ে শুয়ে পড়ল । পারমিতা আমার বরকে নিজের দুই উরু দিয়ে গভীর আবেগে পেচিয়ে ধরল । বলল এইবার সোনা । স্ব্পানেরটা বোধয় সিংহের মত গর্জে উঠছে । পারমিতা বলল ইস আমার হচ্ছে স্বপনদা এস । স্বপন ওর শরীরের মধ্যে ঢালছে । ঘন ঘন নিশ্বাস । পারমিতা শেষ বারের মত পাছা তুলল । আর স্বপন এলিয়ে পড়ল ওর ওপরে ।

কেমন লাগলো গল্পটি ?

ভোট দিতে হার্ট এর ওপর ক্লিক করুন

সার্বিক ফলাফল 3.9 / 5. মোট ভোটঃ 19

কেও এখনো ভোট দেয় নি

1 thought on “porpurush sex choti স্ত্রীর শরীরসুধা – 3”

Leave a Comment