panu choti বউ থেকে hot youtube Star! – 2 by Suronjon

bangla panu choti. ভিডিও পোস্ট করার পর দুদিন এমনি এমনি কেটে গেল। আমি প্রতি ঘন্টায় এক বার করে ইউটিউব খুলে কেউ ওটা ভিউ করলো কিনা চেক করছিলাম। তিন দিন অপেক্ষা করে দেখলাম। কোনো ভিউজ পেলাম না। তার পর আবার একটা নতুন রান্নার ভিডিও ছাড়লাম। এবারে চিংড়ির মালাইকারি রান্না করলাম। এবারেও একি রকম হতাশাব্যঞ্জক রেসপন্স  সামনে আসলো। নো ভিউজ তারই সাথে zero সাবস্ক্রাইবার।

বউ থেকে hot youtube Star! – 1 by Suronjon

এদিকে আমাদের সেভিংস যা ছিল সব শেষ হয়ে আসছিল, আমার বর ওভার টাইম করেও একার কাধে টানতে পারছিল না সংসার খরচ। শেষে  একজন প্রতিবেশীর থেকে ছেলের স্কুল ফিস এর জন্য  টাকা ধার করতে হল। আমার বর এর একটা ফিক্সড ডিপোজিট ছিল। সেটা ভাঙিয়ে সেই টাকা দিয়ে আরো কিছুদিন চলল। আমার পর পর  ইউটিউব ভিডিও বানিয়ে লাভ এর লাভ কিছু হচ্ছিল না, শেষে চার নম্বর   রান্নার ভিডিও ছেড়ে চ্যানেল টি ডিলিট করে দেব এই মনস্থির করলাম।

panu choti

এই ভিডিওটি পোস্ট করার দুদিন বাদে যখন আমি ফের ইউটিউব খুললাম, অবাক হয়ে দেখলাম। আমার ভিডিওটিতে দুই ভিউয়ার এসেছে, আর একজন subscriber ও হয়েছে আমার ইউটিউব চ্যানেলে।যিনি subscribe করেছেন তিনি ভিডিওর নিচে কমেন্ট ও করেছেন। Siraj 007  নামের ঐ ব্যাক্তি কমেন্টে  লিখেছেন – wonderful presentation, sweet voice, please keep it up.”

শেষ ভিডিওটি তে দুজন ভিউয়ারস আসায় আমি কিছুটা হলেও মনে স্বান্তনা পেলাম। আর ভিডিও বানাবো না এটাই স্থির করেছিলাম, কিন্তু দুদিন পর আবার ইউটিউব খুলে নিজের চ্যানেলে গিয়ে অবাক হয়ে দেখলাম, ঐ siraj 007 আবারও আমার শেষ ভিডিওতে কমেন্ট করেছে, ” *******856 whatsapp me, I am waiting for your new video.” উনি শুধু কমেন্ট করেন নি আমার চারটি ভিডিও দেখেছেন আর তাতে লাইক করেছেন।

আমার তখন ঐ কমেন্ট দেখে  কি খেয়াল চাপলো কে জানে বলা নেই কওয়া নেই ঐ অচেনা সিরাজ নামের ব্যাক্তি কে  দুম করে হোয়াটসঅ্যাপ করে বসলাম। panu choti

আমি লিখলাম, নমস্কার, আমি molly creation এর মল্লিকা, আমার ভিডিও দেখার জন্য আর তাতে কমেন্ট করে উৎসাহ দেওয়ার জন্য  অনেক ধন্যবাদ।  আমি আর ভিডিও বানাবো না বলে স্থির করেছি। চারটে ভিডিওতে সেভাবে কোনো  ভিওয়ারস না পাওয়ার জন্যই আমি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এই মেসেজ করার ১০ মিনিট এর মধ্যে reply আসলো ঐ Siraj 007 নামের ব্যাক্তির কাছ থেকে। উনি হোয়াটসঅ্যাপ  মেসেজ করে লিখেছিলেন, ” Hey Molly, Don’t stop making video, you have wonder ful voice and skill, problem is in different place, I will share my point of view if you would allow me.”

আমি এর পর হোয়াটসঅ্যাপে লিখলাম,
হ্যা বলুন না কেন আমার ভিডিও গুলো ভিউজ পাচ্ছে না? আপনার কি মনে হচ্ছে? panu choti

Siraj রিপ্লাই দিলেন, ” আসল প্রব্লেম হচ্ছে তুমি নিজেকে পুরো  ভিডিও তে ঢেকে রাখছ, মুখ ও কেউ দেখতে পারছে না, আর তোমার ড্রেস মেক আপ এর বিষয়ে আরেকটু খোলামেলা হলে পাবলিক এর নজরে আসবে। আমি কটা ভিডিওর লিংক পাঠাচ্ছি, ওগুলো দেখো। মডেল বা কন্টেন্ট creator দের আজকের দিনে শুধু  ভালো ভিডিও বানালে চলে না। নিজের গেট আপ এর দিকে নজর দিতে হয়।”

উনি বেশ কয়েকটি ইউটিউব ভিডিও র লিংক শেয়ার করলো। সেগুলো আমি ওপেন করে দেখলাম আর অবাক হয়ে গেলাম। কি সুন্দর ভাবে সেজে গুজে আমার বয়সী অথবা আমার থেকেও ছোট মেয়েরা  সব ভিডিও বানিয়েছে। তাদের ড্রেস মেক আপ থেকে একটা আলাদা গ্লো বের হচ্ছে যার ফলে ভিডিও গুলো দেখতে আরো বেশি আকর্ষণীয় লাগছে। একি সাথে ওদের ভিউয়ার আর subsriber এর সংখ্যা দেখে আমার চোখ কপালে উঠে গেল। সবারই হাজারের উপর সাবস্ক্রাইবার। panu choti

সিরাজ মেসেজ করলো, ” বুঝতে পারলে Molly, তুমি ঠিক কোন জায়গায় পিছিয়ে, এই দিকে নজর দাও, দেখবে পুরো ছবিটা পাল্টে যাবে। তুমি খুবই প্রমিসিং, কিন্তু তোমার এসব বিষয়ে এক্সপেরিয়েন্স কম যদি তুমি চাও আমি তোমাকে সাহায্য করতে পারি।”

আমি লিখলাম , ” কিভাবে সাহায্য করতে পারেন? আসলে আমার কাছে ইনভেস্ট করার মতন পুঁজি নেই।”

সিরাজ রিপ্লাই দিলেন, ” এটা কোনো প্রব্লেম নয়। আমি আজই আমার সব বন্ধু কে তোমার ভিডিওর লিংক শেয়ার করে দিচ্ছি, এতে কিছু viewrs আর সাবস্ক্রাইবার বাড়বে। নেক্সট ভিডিওতে আমি যা যা বললাম খেয়াল রেখো। তোমাকে ভিডিওতে ভালো করে যাতে দেখা যায় সেটার দিকে নজর রাখবে।”

সিরাজ এর সাথে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ করে আধ ঘন্টা পর আমি আবার যখন আমার ইউটিউব চ্যানেল খুললাম, দেখলাম সাবস্ক্রাইবার ২ থেকে বেড়ে ১৬ হয়ে গেছে। মনে মনে সিরাজ কে ধন্যবাদ জানিয়ে, নতুন ভিডিও বানানোর কাজে মনোনিবেশ করলাম। panu choti

এই বারি প্রথম বার রান্নার ভিডিওর আগে ভালো করে সাজতে বসলাম, চুলটা ভালো করে ক্লিপ দিয়ে পনিটেল করে বেধে, কপালে একটা কালো টিপ পরে, ঠোটে হাল্কা লাল লিপস্টিক মেখে সাজলাম। তারপর আমার কাছে থাকা সব চেয়ে ভালো নীল রঙের  সিল্ক  শাড়িটা আলমারি থেকে বের করে পড়লাম ম্যাচিং কলোরের u নেক ম্যাগি হাতা blouse এর সাথে। এবারে আর মুখে মাস্ক পড়লাম না। সাহস অর্জন করে হাসি মুখে পালং পনির রান্না করলাম। ১০ মিনিটের একটা ভিডিও বানিয়ে সেদিনই পোস্ট করে দিলাম ইউটিউবে।

ভিডিও আপলোড করার কুড়ি মিনিট কাটতে না কাটতেই সিরাজ এর মেসেজ আমার হোয়াটসঅ্যাপে এসে গেল। উনি আমার নতুন ভিডিও দেখে আপ্লুত হয়ে লিখেছিলেন, wonderful Molly, ভিডিও তে তোমার দিক থেকে চোখ ফেরানো যাচ্ছে না। এই ভাবে, নিজেকে আরও ওপেন আপ করো সবাই তোমার admire হয়ে যাবে। নেক্সট ভিডিওতে একটা স্লিভলেস ব্লাউজ পড়। ইটস মাই রিকোয়েস্ট।” panu choti

সিরাজ এর মেসেজ দেখে ভালো যেমন লাগছিল আর ওনার কথা গুলো পড়ে লজ্জা ও করছিল। আমি রিপ্লাই তে লিখলাম হোয়াটসঅ্যাপে, ভিডিওটি ভালো লেগেছে জেনে খুব আনন্দিত হলাম। কিন্তু আপনার অনুরোধ রাখা আমার  পক্ষে সম্ভব হবে না। আমি স্লিভলেস ব্লাউজ পরতে স্বচ্ছন্দ বোধ করি না। আমার সংগ্রহে ঐ ধরনের কোন blouse নেই।

Siraj 007 এটা পরে লিখলো,” come on Molly, তোমাকে তো আস্তে আস্তে স্ট্যান্ডার্ড টা বাড়াতে হবে। সংগ্রহে নেই তো কি হয়েছে, সংগ্রহ করে ফেল। আমি জানি যদি তুমি চাও স্লিভলেস ব্লাউজ কালেক্ট করা তোমার কাছে এমন কিছু বড় বিষয় না। আমি যদি তোমার অ্যাড্রেস জানতাম আমিই নিজেই পাঠিয়ে দিতাম। আমার তো লেডিস ড্রেস এর ই বিজনেস আছে। Come on Molly প্লিজ তোমার ফ্যান দের নিরাশ কর না”

সিরাজ এর মেসেজ দেখে আমি খুব লজ্জা পেয়ে গেলাম।  শেষ মেষ আমি সিরাজ এর অনুরোধ ফেরাতে পারলাম না। আমি লিখলাম হোয়াটসঅ্যাপে, ওকে দেখছি কি করা যায়। Thanks for your support।” panu choti

Siraj এর সাথে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট YouTube channel টা ওপেন করলাম। নতুন ভিডিওটি টোটাল তখন পর্যন্ত ৬৮৬ ভিউজ, আর ৯১ নতুন সাবস্ক্রাইবার এনে দিয়েছে আমার চ্যানেলে, সেটা দেখে আমার উৎসাহ আরো দ্বিগুণ বেড়ে গেল। সেদিনই বিকেল বেলা আমার বন্ধু মেঘনার বাড়িতে গেলাম। ও নিয়মিত স্লিভলেস ব্লাউজ পড়ে, কোথা থেকে বানায় সেটা আমি জানতে চাইলাম। আসলে পাড়ার যে টেলোরিং শপ থেকে আমি ব্লাউস বানাতাম সেখানে গিয়ে হটাৎ করে স্লিভলেস ব্লাউজ বানাতে দেওয়া আমার পক্ষে একটু অস্বস্তিকর ছিল।

মেঘনার কাছে গিয়ে সবকিছু খুলে বললাম। মেঘনা সব শুনে আমাকে আনন্দে জড়িয়ে ধরলো। ও বলল, ” এইতো তুই লাইনে এসে গেছিস, very good। চল তোকে আমি যেখান থেকে বানাই সেখানে নিয়ে যাই। দুদিন এর মধ্যে ডেলিভারি দিয়ে দেবে।

যেমন কথা তেমন কাজ, মেঘনার সাথে beauty plus tailoring বুটিকে গিয়ে আমি জাস্ট তাজ্জব বনে গেলাম। দোকানের ভেতরে মালিক ছাড়াও  ৫ জন কর্মচারী তুমুল ব্যস্ততার সাথে কাজ করছিল। আমি মেঘনা কে একটু সাইডে ডেকে এনে ওর কানে কানে বললাম, ” এটা তো খুব expensive জায়গা লাগছে রে, একটু সস্তার জায়গায় চল না।” panu choti

মেঘনা আমাকে থামিয়ে দিয়ে বলল, ” দুর বোকা, আমি তো আছি কোনো টাকা লাগবে না। উল্টে এরা তোকে টাকা দেবে, সেই সাথে স্টাইলিশ heroine টাইপ ব্লাউজও বানিয়ে  দেবে। আয় না আমার সাথে।”

মেঘনা সোজা গিয়ে ঐ beauty plus বুটিক হাউস এর মালিক সুদর্শন বাবুর সাথে আলাপ করে দিল। কথা বার্তা যা বলার মেঘনাই বলল আমার হয়ে।  মেঘনা বলল, ” এর নাম মলি,আমার খুব ভালো বন্ধু, নতুন এসেছে এই লাইনে, ওর funding  দরকার। আপনার কাছেই নিয়ে আসলাম, একেবারে ফ্রেশ। আপনার কাজে লাগতে পারে।”

সুদর্শন বাবু মেঘনার কথা শুনে আমার দিকে তাকিয়ে আমার পা থেকে মাথা অব্ধি বেশ লোলুপ দৃষ্টিতে ভাল করে মাপলো। অন্যসময় কি করতাম জানি না। কিন্তু ভারী অস্বস্তি বোধ হচ্ছিল তারপরেও মেঘনার সন্মান রাখতে আমাকে সুদর্শন বাবুর  ঐ অসভ্যতা মুখ বুজে হজম করে যেতে হল। panu choti

পাঁচ মিনিট ধরে আমাকে দেখে সুদর্শন বাবুর মুখে হাসি ফুটলো, ও মেঘনার দিকে তাকিয়ে হেসে বলল, ” excellent এরকম মডেল ই চাইছিলাম। কিন্তু এনাকে দেখে মনে হচ্ছে ভদ্র ঘরের middleclass বউ, উনি তোমাদের মতন সব কিছু করতে পারবে তো।”

মেঘনা বলল, ” কেন পারবে না, আপনি ওকে একবার দায়িত্ব দিয়ে দেখুন না। আমি তো আছি ওকে শিখিয়ে পরিয়ে নেব।”

এই বলে মেঘনা আমার সামনেই সুদর্শন বাবুকে আমার ইউটিউব চ্যানেল খুলে আমার ছাড়া লেটেস্ট ভিডিওটি দেখালো। ওটা দেখার পর সুদর্শন বাবুর দুই চোখ উজ্জ্বল হয়ে উঠল, উনি আর কোনো প্রশ্ন তুললেন না। ওখানেই অন the spot একটা তিন মাস এর চুক্তি হল আমার সাথে ঐ beauty plus বুটিক এর। চুক্তির কন্ডিশন গুলো ছিল, যে আমাকে সপ্তাহে মিনিমাম দুটি করে ভিডিও করতে হবে। panu choti

আর  আগামী তিন মাসে আমার সব ভিডিওতে ওদের প্রস্তুত করা পোশাক পড়তে হবে , ভিডিওতে আমাকে ওদের বুটিক এর নাম উল্লেখ করতে হবে, ভিডিওর নিচে ডেসক্রিপশনে লিখতে হবে dress coutsey: Beauty plus dress boutik p ltd. আর এর জন্য আমি আমার প্রতি  ভিডিওর জন্য এক সেট করে পোশাক ছাড়াও মাসে  ১০ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পাবো ওদের ড্রেস পরে ভিডিও বানানোর জন্য। এটা আমার মতন নতুন Creator এর কাছে দারুন একটা ডিল ছিল। আমি সাত পাঁচ না ভেবে ওদের কথায় রাজি হয়ে গেলাম।

আমার বর এর সাথে একবার কথা বলে নেওয়া উচিত ছিল সেটা না করে ওদের কথা বিশ্বাস করে  সাথে সাথে রাজি হয়ে গেলাম ওদের প্রস্তাবে। সুদর্শন বাবু পুরো ব্যবসাদার লোক ,  স্ট্যাম্প পেপারে কন্ট্রাক্ট এর টার্মস গুলো সব লিখে নিয়ে আমাকে দিয়ে সই করিয়ে নিলেন, পেপার ওয়ার্ক সেরে আমাকে একমাসের পারিশ্রমিক অগ্রিম ১০হাজার টাকা আর নতুন দুই সেট ড্রেস প্যাকেট এ ভরে আমার হাতে তুলে দেওয়া হল। panu choti

আমি অবাক হয়ে প্রশ্ন করলাম, এটা আমার ফিটিংস হবে  কিনা সেটা তো আপনারা মাপ নিয়ে দেখলেন না। আমার কথা শুনে সুদর্শন বাবু আর মেঘনা হো হো করে হেসে উঠলো। মেঘনা বলল উনি চোখ দিয়ে যা মাপ নেওয়ার নিয়ে নিয়েছেন। ঠিক ফিটিংস হবে, ওনার  টেপ দিয়ে মাপ নেবার কোনো  প্রয়োজন পড়েনা।

এক সাথে স্থির হল,সপ্তাহে একবার করে এসে আমাকে পুরনো সেট  ড্রেস ফেরত দিয়ে নতুন সেট ড্রেস নিয়ে যেতে হবে। উনি আমার অ্যাড্রেস তাও নোট করে নিয়েছিলেন বাই চান্স আসতে না পারলে ফোন করে দিলে উনি আমার বাড়িতে লোক পাঠিয়ে দিয়ে ড্রেস পাল্টে দেওয়ার ব্যাবস্থা করবেন।  এক ঘন্টা মতন আমি আর মেঘনা ঐ সুদর্শন বাবু র বুটিকে কাটিয়ে একটা রিক্সা ধরে ওর বাড়িতে ফিরলাম।মেঘনার বাড়িতে ফিরে  বসতে না বসতে মেঘনা বলল, নে প্যাকেট গুলো একবার খুলে দেখ। সুদর্শন দার পছন্দ ভালো হবে। তোর ভোল পাল্টে যাবে এগুলো পড়লে। panu choti

মেঘনার কথা মত আমি প্যাকেট গুলো বার করে ড্রেস গুলো উল্টে পাল্টে দেখলাম সেমী transparent designing শাড়ী ছিল আর তার সাথে blouse গুলো দেখে আমার চোখ কপালে উঠে গেল। ব্লাউজ গুলো একটা ছিল কালো রঙের আর আরেকটা ছিল অরেঞ্জ কালারের। দুটোই পিঠ খোলা টাইপ হাতকাটা লো কাটিং ব্লাউজ ছিল। তার  মধ্যে একটা আবার ছিল সামনের বুকের দিকে v কাট করা। যেটা পড়লে আমার  বুকের  স্তন বিভাজিকা, স্তনের উপরের অংশ সম্পুর্ন উন্মুক্ত হয়ে যাবে।

আমি ওগুলো দেখে না না করে উঠলাম। মেঘনা কে ব্লাউজ গুলো দেখিয়ে বললাম, ” দেখেছিস তোর সুদর্শন বাবুর কাণ্ড। উনি কি এক্সপেক্ট করেন। আমি এগুলো পরে ভিডিও বানাবো। ছি..
এগুলো পড়ার থেকে তলায়  যেগুলো পড়ি সেগুলো তাহলে কি দোষ করলো।”

মেঘনা বলল, ” উফফ বেশি বাড়াবাড়ি করছিস। এগুলো পড়ার জন্য মাল্লু দিচ্ছে। আর এতে লাভ বই ক্ষতি তো নেই, এতদিন বেশি সতী পনা দেখিয়ে কি পেয়েছিস বল তো? তার চেয়ে আয় না একটু খোলা মেলা ড্রেস পরে যদি একটু এক্সট্রা  অর্থ পাওয়া যায় ক্ষতি কি.. এগুলো পড়লে তোকে দারুন লাগবে। panu choti

আমি: এসব কি বলছিস? ছি.. এগুলো পরে ভিডিও বানিয়ে ভাস্কর কে আমি মুখ দেখাবো কি করে।

মেঘনা: তুই সেই বোকা তো বোকাই রয়ে গেলি। পুরুষ মানুষ এর মন বুঝতে শিখলি না। ভাস্কর কিছু উল্টো পাল্টা বলে জাস্ট care করবি না। এটা তোর লাইফ তোর choice। বেশি বললে টাকাটা বর এর মুখে ছুড়ে মারবি। স্ত্রী পূত্রর  খরচ বহন করতে পারে না বড় পুরুষ মানুষ এয়েছে।
আমি: এটা হয় না ,এটা করতে পারবো না।

মেঘনা: খুলে একবার ট্রাই করে দেখ না। কেন এরকম করছিস।  প্রথম প্রথম লজ্জা ভয় হওয়া স্বাভাবিক, দেখবি এটাই পরে ইজি হয়ে যাবে। দাড়া তোকে আমার তরফ থেকে একটা গিফট দিচ্ছি তোর কাজে লাগবে ”

এই বলে মেঘনা নিজের wardrobe খুলে একটা নতুন ফোন এর বক্স বের করে আমার হাতে দিল।
আমি জিজ্ঞেস করলাম ” এটা কি? তুই আবার নতুন ফোন কিনেছিস?” panu choti

মেঘনা: দুর কিনতে যাবো কোন দুঃখে। লাভার গিফট দিয়েছে। তোর হ্যান্ড সেট তার যা অবস্থা দেখছি, তাই এটা তোকে দিয়ে দিচ্ছি। এমনিতে আমার তিনটে ফোন আছে এটার আর আমার দরকার নেই।১২ হাজার টাকা দামের স্মার্ট ফোন সেট। এর ক্যামেরা টা ভালো। তোর ভিডিও বানাতে কাজে লাগবে।”

আমি: হ্যা রে তোর লজ্জা করছে না। বর থাকতে এভাবে একাধিক পর পুরুষের সঙ্গে খেলছিস । আবার তার থেকে এসব দামী গিফট নিচ্ছিস। না আমি এটা নিতে পারবো না।”

মেঘনা: দেখ আর ন্যাকামি করিস না। এটা  তোকে নিতেই হবে। আর পর পুরুষের কথা বলছিস। ওটা পার্ট of লাইফ।। কদিন পর তোর ও লাইফে কেউ আসবে। আসতে বাধ্য!”
আমি: আমার ওত শখ নেই বাবা। তোর মতন সাহস ও আমার নেই। panu choti

মেঘনা: সাহস নেই সাহস চলে আসবে।  এই দেখ সবে তো শুরু কত পুরুষ  এখন আসবে তোর জীবনে নম্বর share করবে। তাদের সাথে কথা হবে। কারোর কারোর সাথে কথা হয়ে ভালো লাগা শুরু হবে, meet করবি।  কথার বার্তার প্রেম আলাপ ও জমবে। তারপর সেই প্রেম বিছানায় অব্ধি গড়াবে।  আমিও দেখবো কতদিন আমার এই বন্ধুর চরিত্র ঠিক থাকে।”

আমি মেঘনার কথায় আর জবাব দিতে পারলাম না।  মেঘনা আরো একটা অনেক দেরি হয়ে গেছিল। ধ্যাত বলে ওকে হালকা কাধে চাপর মেরে, ওর কথায় react করলাম।
মেঘনা হেসে বলল, হমম আরেকটা জিনিস কিন্তু করতে হবে বুঝলি, আমি ক্রিম আর রেজর সব দিয়ে দিচ্ছিস। বাড়ি গিয়ে বগলের সব চুল কিন্তু কামিয়ে নিবি। আর্ম পিট একেবারে ক্লিন সেভ থাকবে বুঝলি, নাহলে এই সব ব্লাউজ পড়লে মানাবে না।

আমি বললাম,  ওসব আবার কেন? আমি কি শুধু বগল দেখাবো নাকি। ওসব দরকার নেই। panu choti

মেঘনা তাও জোর করে আমার প্যাকেট এর ভেতর নতুন সিল প্যাক মহিলাদের শেভিং ক্রীম আর একটা গোলাপী রং এর রেজর রেখে দিয়ে বলল, ” আমার কথা শোন। এটা  দরকার। আর্ম পিট কামিয়ে পরিষ্কার রাখলে নারীদের রূপ আরো খোলে,  তোকে সেক্সী দেখাবে। আর intentionally  না দেখালেও, খুন্তি নাড়ানোর সময় তোর কি ওত খেয়াল থাকে।, যা দেখার ভিউয়ার রা ঠিকই দেখতে পারবে।”
নতুন ফোন  আর ড্রেস এর প্যাকেট এর সাথে মেঘনার আবদার রাখতে শেভিং কিটস টিও সঙ্গে নিয়ে  বাড়ি ফিরে আসলাম।

পরের দিন থেকে নতুন আত্মবিশ্বাসে  আমার পথ চলা শুরু হল। আদা জল খেয়ে নতুন ভিডিও বানানোর প্রস্তুতি শুরু করলাম। আমার বর কে বাড়ি ফিরে সেদিনই রাতের বেলা খেতে খেতে  বুটিকের মডেল হিসাবে কাজ করার ব্যাপারটা খুলে বলেছিলাম, আমার বর দেখলাম, সব শুনে আপত্তি করলো না বরংচ আমাকে নতুন উদ্যমে ভিডিও বানাতে   উৎসাহ দিল। panu choti

মেঘনার কথা আমার মাথায় বেশ ভালো ভাবেই ঢুকেছিল, তাই  পরের দিন  স্নান এর সময়ই  ওর দেওয়া শেভিং ক্রিম আর রেজর দিয়ে বগলের চুল সব কামিয়ে চকা চক করে ফেললাম। মেঘনা ঠিকই বলেছিল armpit shave করতেই  আমার চেহারা স্লিভলেস ব্লাউজ পড়ার উপযুক্ত শেপ নিল।
এদিকে আমার ইউটিউব চ্যানেল এর প্রথম সাবস্ক্রাইবার সিরাজের দৌলতে আমার হোয়াটস অ্যাপ নো টি ওর কিছু ঘনিষ্ঠ বন্ধু দের মধ্যে share হয়ে গেছিল। যার ফলে সিরাজের  samir, racer99, আনোয়ার85, ইমাদ, সোহেল এর মতন ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা আমাকে মেসেজ করে ভিডিওর জন্য তাড়া দিচ্ছিল।

সিরাজ এর কথা শুনে আরেকটা নতুন জিনিস করলাম, ভিডিও আপলোড এর আগে একটা 12 সেকেন্ড এর টিসার আপলোড করলাম, যাতে বিউটি প্লাস ফ্যাশন বুটিক এর থেকে পাওয়া এক সেট  সেমী ট্রান্সপারেন্ট শাড়ী আর কালো রঙের ব্যাক লেস blouse পরে প্রথমবার ফোন  ক্যামেরায়  শুট করলাম। panu choti

Blouse টা পরে খুব uncomfortable feel লাগছিল। অভ্যাস না থাকায় অসুবিধা তো হচ্ছিল তার উপর blouse টা আমার বুকে বেশ টাইট ফিটিংস হওয়ায়, ব্রেস্ট অপেক্ষাকৃত বড় লাগছিল। মনে হচ্ছিল blouse ফেটে মাই জোড়া বাইরে বেরিয়ে আসবে। Teaser টা তুলে ইউটিউবে ছাড়ার আগে ,  সিরাজ কে পাঠিয়েছিলাম। ও সেটা দেখা মাত্র  love রিয়েক্ট দিয়ে অ্যাপুভ করলো, সাথে বলল দারুন awsome হয়েছে। তবে মেইন ভিডিও তোলার আগে একটা ছোট চেঞ্জ করতে হবে তোমার গেট আপ এর।
আমি জিজ্ঞেস করলাম, কি চেঞ্জ করতে হবে? সব ঠিক থাকই লাগছে তো আমার।

সিরাজ বলল, ” ভালো করে আরো একবার টিজার ভিডিও টা দেখো। বুঝতে পারবে ভুল টা কোথায় হয়েছে। তোমার ব্রা টা এই blouse এর সাথে মোটেই খাপ খাচ্ছে না। উল্টে কাধের কাছে লেস বার হয়ে থাকায় একটু বিশ্রী লাগছে। You know what, এই ধরনের blouse এর সাথে ব্রা না পড়লেও চলে। ব্রা পড়লে সিফ underwire পুশ আপ ব্রা লাগে সরু পাতলা লেস ওলা। ব্রা টা পাল্টে নাও দেখবে তুমি আরো পারফেক্ট দেখতে লাগবে।” panu choti

সিরাজ এর কথা শুনে আমি কিছুটা ভয় পেয়ে গেলাম। ব্রা ছাড়া ব্লাউজ পড়লে আরো পরিষ্কার সব কিছু দেখা যাবে আর ঐ ধরনের পুশ আপ ব্রা নেই আমার। আমি ওনাকে আমার অসুবিধার কথা টা বলতে সিরাজ আমার প্রব্লেম কে খুব একটা পাত্তা দিল না। সিরাজ বলল, ” ওহ কম অন Molly, তুমি বেকার ভয় পাচ্ছো। এটা কোন বড় বিষয় না। আমি যে ভিডিও গুলো share করেছিলাম দেখেছো।  ওখানে কেউই তোমার মতন ব্রা পরে নি।  ব্রাই যখন পড়বে তখন এই এত সুন্দর সেক্সী টাইপ blouse পড়ার তো কোনো মানে থাকছে না।

সিরাজ এই ভাবে আমাকে convince করিয়ে ফেলল।  টিজার আপলোড করার একদিন বাদেই, ওনার কথা মত ব্রা ছাড়াই ঐ স্লিভলেস ব্যাক লেস blouse পরে ডিমের ডালনা রান্না করার ১৫ মিনিট এর  ভিডিও দিলাম। মেঘনার  ফোন দেওয়াতে ক্যামেরার কোয়ালিটি  চেঞ্জ হয়েছিল, আর ভিডিও টা তাই আরো   ভাল ভাবে বানানো গেছিল। panu choti

মেঘনার দেওয়া ফোনে একটা ভালো ভিডিও এডিটিং অ্যাপ ইন্সটল করা ছিল, ওটার সাহায্যে আমি ভিডিও টে কিছু মিউজিক আর অন্যান্য এডিট  ইউজ করে ভিডিও টিকে একটা পারফেক্ট ফিনিশিং টাচ দিলাম। সব মিলিয়ে মনে সাহস এনে প্রথম বার সাহসী blouse সেমী ট্রান্সপারেন্ট শাড়ী পরে শুট করে ভিডিও টি আপলোড করার পর ঘন্টা খানেক এর ভেতর আমার whatsapp inbox সিরাজ আর বন্ধুদের উষ্ণ অভ্যর্থনা মেসেজে ভরে উঠলো। সিরাজ বলল, দারুন তুমি ফাটিয়ে দিয়েছ এই তো চাই…

-Mind blowing

– এইতো  সুন্দরী, ভিডিও বানানো শিখে গেছ। আর্ম পিট টা পুরো মাখন, দেখে জিভে জল এসে যাচ্ছে।

– Molly you looks hot like actress

– Tumare Ek video mere jina haram Kore diyeche…… panu choti

– you have such a beautiful body, I made fan of your beauty

– khana se khana pakane wali jyada delicious hain

– *******442 please  call me at night

– Molly my favourite woman…

– Kya mast body hain Bhai..

– মলির রান্নার থেকে মলির সাজ পোশাক দিন দিন আরো সুন্দর হচ্ছে।

– Molly my crush , call me*******44

– Molly তোমার সাথে একান্তে প্রাইভেসি মোমেন্ট এনজয় করতে চাই। Pls call me ********12
– what is her  full name?

– hottest রাধুনী, আমার রান্না করে দেবে। কি ভাবে যোগাযোগ করবো…. panu choti

– nice juicy assets

ভিডিওর নিচে এহেন Comment গুলো দেখে আমার  লজ্জায় মুখ লাল হয়ে গেছিল। ঐ ভিডিওটি সত্যি ব্যাপক সারা পেল, অতটা আমারও expectation ছিল না। সিরাজ আর ওর বন্ধুদের কল্যাণে ভিউয়ার লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছিল। ভিডিওর ভিউজ একদিন এর ভেতর যখন 2500 ছাড়িয়ে গেল । এইভাবে প্রথমবার সাফল্যর স্বাদ চাকলাম।

চলবে….

এই গল্প কেমন লাগছে,কমেন্ট করুন। পার্সোনাল ভাবে মেসেজ ও করতে পারেন সরাসরি আমার টেলিগ্রাম আইডি @SuroTann21

কেমন লাগলো গল্পটি ?

ভোট দিতে হার্ট এর ওপর ক্লিক করুন

সার্বিক ফলাফল 4 / 5. মোট ভোটঃ 13

কেও এখনো ভোট দেয় নি

1 thought on “panu choti বউ থেকে hot youtube Star! – 2 by Suronjon”

Leave a Comment